জীবনযাপন

অধিকাংশ ডাক্তারের চাকুরী থাকবে না -Dr. Jobs Is Not There

Will doctors lose their jobs?

লাশ কাঁটা ঘর থেকে মাঝে মাঝেই একটা শব্দ আসছে।



আশেপাশে তাকিয়ে দেখলাম কাউকে দেখা যায় কিনা, কিন্তু কাউকে তো দেখতে পাচ্ছি না।

প্রাণ বলতে এতক্ষনে শুধু মর্গে ঢুকার গলির মুখে ২ টি কুকুরকেই বসে থাকতে দেখে এসেছিলাম।

আসলে এই অলস দুপুরে সরকারি হাসপাতালের এই দিকটাতে তেমন কেও আসে না। হাসপাতালের প্যাসেজের দুই পাশে বেশ কয়েকটি বন্ধ দরজা, মাঝামাঝি বরাবর একটা দরজা একটু খোলা মনে হচ্ছে। হুম ঐটাই সেই মর্গ, যেখান আঠারো বছর আগে আমরা ইন্টার পড়ুয়া সাইন্সের দুই বন্ধু এসেছিলাম। ফিরেছিলাম একরাশ ভয় আর আতঙ্ক নিয়ে। আমার সেই আতঙ্ক থেকে ফোবিয়া মতন হয়ে গেল, শেষে সাইন্স ছেড়ে দিলাম। শুনেছি বন্ধুটি আরো বহুবার সেখানে গেছে। আজ ১৮ বছর পর পেশাগত কাজে আবারো আসতে হলো। আমি এগোতেই শব্দটি থেমে গেল, কি করবো, ফিরে যাবো। আচ্ছা কত গুলো লাশ ওখানে পড়ে আছে ? লাশ তো আর শব্দ করবে না। এসব ভাবতে ভাবতে দরজার সামনে চলে এলাম। ঘরের ভেতর থেকে পানি পড়ার শব্দ পেলাম। আমি কি দরজায় নক করবো, না ধাক্কা দিয়ে খুলে ঢুকে পড়বো। হয়তো নক করলে লাশ বলে উঠবে, কে ? দরজার ফাঁক গলে দেখলাম, সাদা কাপড় পড়া একটা মানুষ একটা টেবিলের উপর রাখা লাশের উপর ঝুঁকে কিছু একটা করছে। যা থাকে কপালে, দরজা খুলে ঢুকেই পড়লাম। সালাম দেওয়া মাত্রই মানুষটি আমার দিকে ঘুরে তাকালো। চশমার আড়ালে ১৮ বছর আগের বন্ধুর সেই চোখ জোড়া চিনতে একটুও কষ্ট হলো না।



জানতে পারলাম পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব মানুষটির মৃত্যুর সময় বাসায় কেউ ছিল না, মামলাটিতে বেশ জট লেগে আছে। ডাক্তার হিসেবে ওর দায়িত্ব কিভাবে মৃত্যু হলো, খুঁজে বের করা। বন্ধুটি আমার নিখুঁত হাতে সেই কাজটিই করছিলো। দুজনে বাহিরে এসে, খোলা জায়গায় দাঁড়িয়ে কথা শুরু হলো। Dr Jobs কি ভবিষ্যতে প্রযুক্তির উৎকর্ষে হারিয়ে যাবে ? ডাক্তার বন্ধুর মতে, যত দিন যাবে technology আরো উন্নত হবে, তাতে আমাদের সমস্যা সমাধানের এলিমেন্টস গুলো আমরা আরো সহজে এবং কম সময়ে খুঁজে পাবো। যেমন ময়না তদন্তের ক্ষেত্রে ওই মৃত মানুষটির সামাজিক, অর্থনৈতিক ও অন্যান্য অবস্থাও কিন্তু কোনো না কোনো ভাবে চলে আসে, যা এক মাত্র মানুষই বিবেচনা করবে। অর্থাৎ মানুষ সমগ্র বিষয়গুলোই মাথায় রাখবে, যেটি তাকে সামনে এগোতে সাহায্য করবে। কিন্তু একটা মেশিনের পক্ষে কোনো ভাবেই এমন করে সকল বিষয় বিবেচনায় রাখা সম্ভব নয়। তাই বলা যায় Dr Jobs হারাবে না, বরং সমৃদ্ধশালী হবে।

পৃথিবী থেকে যে পেশা গুলো একেবারে বিলুপ্ত হয়ে যাবে তার তালিকা জানতে এখানে ক্লিক করুন

এখন আসুন দেখা যাক প্রযুক্তিবিদরা Dr Jobs নিয়ে কি বলে

প্রযুক্তিবিদদের মতে Doctors Jobs

বর্তমানে করোনা বা বিভিন্ন ধরণের ছোয়াচে রোগের জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞান ভবিষ্যতে অনেক খানিক পরিবর্তন হবে বলে অনেক প্রযুক্তিবিদ মত দিচ্ছেন, প্রযুক্তির উৎকর্ষে ভবিষ্যতে প্রায় ৮০ ভাগ চিকিৎসক তাদের চাকুরী হারাবে। কারণ বাস্তবতা কি বলে তা ভাবার বিষয়। প্রযুক্তি ডাক্তারদের সিদ্ধান্ত নিতে চূড়ান্তভাবে সাহায্য করে অর্থাৎ তাদের আরো ভালো চিকিৎসক হতে ভূমিকা রাখে।

প্রযুক্তি রোগী এবং চিকিৎসকদের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া ও নেওয়ার পদ্ধতিটি পুরোপুরি বদলে দিচ্ছে। সিলিকন ভ্যালিতে বিনিয়োগকারী বিনোদ খোসলা একবার এক সেমিনারে বলেছিলেন যে,

ভবিষ্যতে রোবটরা প্রায় ৮০ শতাংশ ডাক্তারকে সরিয়ে গড় চিকিৎসকদের তুলনায় আরও নির্ভুল এবং সস্তায় চিকিৎসা সেবা দিতে পারবে। তিনি আরো যোগ করেছেন যে, আমাদের শেষ পর্যন্ত চিকিৎসকের প্রয়োজন হবে না।

যদিও ডাক্তারদের কাজ করার পদ্ধতিতে প্রযুক্তি ইতিমধ্যে বেশ বড় প্রভাব ফেলেছে। অনেক ক্ষেত্রে এই পেশাতে একঘেয়ে অনেক কাজ রয়েছে যা বেশিরভাগ চিকিৎসকদের পেশার প্রতি ঘৃণা সৃষ্টি করে। ডিজিটাল উপকরণ গুলি ওই কাজ গুলি আরও ভাল, দ্রুত এবং সস্তায় সুষ্ঠ ভাবে সম্পাদন করতে পারে। এই কাজগুলির জন্য সাধারণত কোনও সৃজনশীলতা বা সহানুভূতির প্রয়োজন হয় না। ডিভাইসগুলি চিকিৎসদের সামনে ডেটা উপস্থাপন করে, যখনই গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণগুলি দেখা যায় তখন তাদের জানিয়ে দেয়। এটি চিকিসকদের পেশাদার মনোযোগ বৃদ্ধি করবে, যা সত্যিই প্রয়োজনীয়। আগের তুলনায় ডাক্তারদের সৃজনশীলতা এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতার জন্য প্রযুক্তি বড় বেশি প্রয়োজন। ডাক্তারদের এগুলি এমন এক দক্ষতা যা কোনও ডিজিটাল স্বাস্থ্য ডিভাইস বা সফ্টওয়্যার দ্বারা সম্পাদন করতে সক্ষম নন এবং তা প্রতিস্থাপনও করতে পারে না। তাই কোনো ভাবেই বলা যায় না যে, Dr Jobs হারিয়ে যাবে।



উপসংহার

সুতরাং, স্বাস্থ্যসেবাতে ডিজিটাল প্রযুক্তি হয়তোবা একটা দীর্ঘ আস্থার জায়গা তৈরী করবে কিন্তু তা কোনোভাবেই মানুষের সৃজনশীলতার কাছে আসতে পারবে না। তবে প্রযুক্তিগত বিপ্লব থেকে স্বাস্থ খাত ব্যাপক ভাবে উপকৃত হবে তা বলার অবকাশ রাখে না এবং Dr Jobs হারিয়েও যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button