জীবনযাপনঅনলাইনে ইনকাম

ব্যবসার আইডিয়া

ব্যবসার আইডিয়া খুঁজে পাওয়া খুব কঠিন। কারণ এর মধ্যে অনেক প্রশ্ন রয়েছে। আমি কি করব, কত খরচ হবে, কোথা হতে পাবো, কে কিনবে? এই প্রশ্নগুলোর উত্তর জানা ব্যবসা শুরু করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  আপনি যদি একটি ছোট ব্যবসা শুরু করতে চান তবে আপনার জন্য এই লেখাটি। এই আর্টিকেলটি পড়ার পর আপনি একটি চাকরী শুরু করার পরেও ব্যবসা শুরু করতে আগ্রহী হবেন। তবে তাদের বেশিরভাগ দুর্বল ব্যবসায়িক ধারণা, পরিকল্পনা এবং অভিজ্ঞতার জন্য সফল হতে পারে না। এই নিবন্ধটি আপনাকে একটি লাভজনক ব্যবসায়িক ধারণা দিবে এবং আপনি কম বিনিয়োগ করে নতুন ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

এখানে কিছু ব্যবসার আইডিয়া দেওয়া হয়েছে

অর্গানিক চা ও কফির দোকান

কফি তরুণ এবং মধ্যবয়সী মানুষের কাছে একটি ফ্যাশনেবল, বিলাসিতা এবং স্বাস্থ্যকর পানীয়। এজন্য আপনি একটি কফিশপ বা অর্গানিক চা এর দোকান দিয়ে আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। অর্গানিক চা এর দোকান ও কফি শপের জন্য বিপুল অর্থ বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই তবে আপনি একটি ছোট কফিশপ বা অর্গানিক চা এর দোকান থেকে প্রচুর লাভ করতে পারেন। কলেজ, স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয়, কর্পোরেট অফিস, রেলস্টেশন, বাস স্টপ, পার্ক, রিসর্ট বা যে কোনও ব্যস্ত স্থানে অর্গানিক চা এর দোকান বা কফি শপের জন্য ভালো স্থান।

নতুন পণ্য তৈরি

আপনি আপনার বাসাতে বিভিন্ন ধরণের কেক, বিস্কিট, চিপস তৈরি করে, একটু ভালো মানের ছোট -ছোট প্যাকেট এ প্যাক করে ছোট দোকান গুলাতে দিতে পারেন। তবে এই ব্যাবসাটা গ্রাম পর্যায়ে খুব ভালো হয়। এছাড়াও বিভিন্ন পণ্য তৈরি করে ও পণ্য তৈরি ইউটিউব এ দেখিয়ে আয় করা যায়।

দই বা লাডডু বানানো

আপনি ছোট ছোট বাটিতে দই বা লাডডু বানিয়ে বিভিন্ন বাজারে বা শহরের অলি গলির দোকান গুলাতে সরবরাহ করতে পারেন। বর্তমানে ভালো মানের দই এর অনেক চাহিদা রয়েছে।

উপহারের দোকান

উপহারের দোকান বাংলাদেশের মানুষের ভেতর একটি খুব জনপ্রিয় দোকান। কারণ বাঙ্গালীরা উপহার দিতে ও পেতে খুব ভালোবাসে। তাছাড়াও আপনি ৯৯ এর একটি দোকান দিতে পারেন। সুতরাং এটি লাভজনক ব্যবসা এবং বিশাল বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই। কেউ যদি স্কুল / কলেজ / শপিংমলের কাছে কোনও উপযুক্ত জায়গায় কোনও উপহারের দোকান শুরু করেন তবে কয়েক মাসের মধ্যে এটি সফল হতে পারে।

ফুলের দোকান

ফুল সবার জন্য ভালবাসার প্রতীক এবং পবিত্র। এটি একটি লাভজনক ব্যবসা এবং স্বল্প বিনিয়োগের পণ্য। কোনও অনুষ্ঠান, বিশেষ দিন এবং পার্টিতে ফুলের চাহিদা থাকে। সুতরাং, আপনি ফুল বিক্রি করতে পারেন এবং এক বছরে মধ্যেই আপনি অনেক টাকা উপার্জন করতে পারেন। তবে ফুলের দোকানের জন্য আপনাকে একটি সঠিক স্থান খুঁজে বের করতে হবে।

লেডিস বুটিক

মহিলা উদ্যোক্তাদেড় জন্য ফ্যাশন বা বুটিক শপ একটি আদর্শ ব্যবসা। বুটিক ব্যবসায় বাংলাদশের মহিলারা ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে। তবে বুটিক এবং মহিলা ফ্যাশন হাউস শুরু করতে সৃজনশীলতা এবং কিছু ধারণা প্রয়োজন, যা আপনি সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে পেতে পারেন।

প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পণ্যের দোকান (অনলাইন এবং অফলাইন)

প্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় হ’ল বাংলাদেশের সবচেয়ে লাভজনক এবং ক্রমবর্ধমান ব্যবসা। বিভিন্ন পণ্য যেমন ইলেকট্রনিক পণ্য, আসবাব, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ইত্যাদি এ ব্যবসায় সর্বাধিক জনপ্রিয়। ইতিমধ্যে অনেকে অনলাইন এবং অফলাইনে এই ব্যাবসায় ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে ।

রিলোকেশন সংস্থা

রিলোকেশন সংস্থা বর্তমানে বেশ আধুনিক একটি ব্যবসা। এটি বাসা, অফিস স্থানান্তরিত করতে বেশ পরিশ্রম করতে হয়। সেই পরিশ্রম কে সহজ করতে এই সেবার সৃষ্টি হয়েছে। বাড়ি, অফিস বা দোকান পরিবর্তন একটি নিয়মিত বিষয় তবে আমাদের দেশে এখনো এই ব্যবসাটি ভালোমতো চালু হয় নাই।

লন্ড্রির দোকান

লন্ড্রি সেবা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমানে আমাদেশের দেশের অধিকাংশ মানুষই বিভিন্ন ধরণের অফিস আদালতে কাজ করে। তাই দেখা যায় যে কাজের চাপে তারা তাদের কাপড় চোপড় ধুতে ও আয়রন করতে বেশ কষ্টে পড়ে যায়, তাই অনলাইন ও অফলাইনে এটিকে একটি লাভজনক ব্যবসা হতে পারে।

ক্যাটারিং সার্ভিস

খাদ্য সরবরাহ একটি শহর ভিত্তিক ব্যবসা। এটি কোনও অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা নয়, এটি চুক্তিবদ্ধ ব্যবসা। সাধারণত, এই ফার্ম তাদের গ্রাহকদের বাড়ি, অফিস বা কর্মক্ষেত্রে সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, ডিনার সরবরাহ করে । সাধারণতো মাস শেষে বিল পাওয়া যায়।

ট্রাভেল এজেন্সি

ভ্রমণ ও পর্যটন শিল্প বাংলাদেশের সর্বাধিক ক্রমবর্ধমান খাত। বিভিন্ন পর্যটন স্থানে ভ্রমণকারীদের ভিড় রয়েছে। তাদের বেশিরভাগের ভ্রমণের আগের অভিজ্ঞতা নেই, শুধু তাই নয় নিরাপত্তার বিষয়টিতো রয়েছে। তাই তাদের একটি ট্র্যাভেল এজেন্সির সহায়তা প্রয়োজন। বাংলাদেশে তিন ধরণের ট্র্যাভেল এজেন্সি দেখতে পাওয়া যায়। স্থানীয় , আন্তর্জাতিক এবং হজ এজেন্সি। স্থানীয় ভ্রমণ সংস্থা বা ট্যুর অপারেটর একদম প্রাথমিক অবস্থায় আপনার জন্য ভালো হবে।

ট্যাটুর দোকান

ট্যাটু স্টুডিও ঢাকা বা বাংলাদেশের বড় বড় শহরে একটি স্টার্টআপ সৃজনশীল ব্যবসা। ট্যাটু তরুণ ও যুবতী ছেলে মেয়েদের কাছে খুব জনপ্রিয়। সুতরাং, কোনও ট্যাটুর দোকান আপনার শুরু করার আকর্ষণীয় ব্যবসা হতে পারে।

আসবাবপত্রের দোকান

আসবাবপত্র সর্বাধিক দরকারী পণ্য যা বাড়ি, অফিস, আউটলেট, দোকান বা কোনও সংস্থায় ব্যবহৃত হয়। আপনি যদি আপনার সৃজনশীল ধারণা দিয়ে কোনও আসবাবপত্র ডিজাইন করা ওয়ার্কশপ শুরু করেন তবে আপনি সহজেই আপনার ব্যবসায় সাফল্য অর্জন করতে পারেন। এটি একটি নিম্ন বিনিয়োগের ব্যবসা এবং এখানে ব্যাঙ্ক লন পাওয়া যায়। ভালো ডিজাইনের ফার্নিচার শপ বাংলাদেশ জুড়ে একটি লাভজনক ব্যবসা। এখন ছোট শহর থেকে বড় বড় শহরগুলির আসবাবের দোকান বেশ ভালো ব্যবসা করছে।

ফটোগ্রাফি

ফটোগ্রাফি ও একটি লাভ জনক ব্যবসা। আপনি একটি ফটোগ্রাফি এজেন্সি শুরু করতে পারেন। সাধারণ জন্মদিনের পার্টি থেকে শুরু করে বড় বড় কর্পোরেট সংস্থাগুলির সর্বত্রই একজন পেশাদার ফটোগ্রাফার দরকার পড়ে। তবে এতে আপনার খুব ভালো মানের প্রফেশনাল ক্যামেরা ও দক্ষতা থাকতে হবে।
ই-বাণিজ্য, রিয়েল এস্টেট, খুচরা বিক্রেতা, ফ্যাশন এবং পোশাক, বিপণন সংস্থা, ক্রিয়েটিভ এজেন্সি, বিবাহ পরিকল্পনাকারীর সংস্থাগুলিও আপনার গ্রাহক হতে পারে।

ওয়েব ডিজাইন সংস্থা

এখন একটি দিন, ওয়েবসাইট ছাড়া ব্যবসায়ের কোনও মূল্য নেই। একটি প্রতিক্রিয়াশীল ওয়েবের প্রায় সকল ব্যবসায়ের জন্যই প্রয়োজন পড়ে। এই কারণে ওয়েব ডিজাইন এবং উন্নয়ন সংস্থা হ’ল ডিজিটাল বিশ্বে সর্বাধিক চাহিদাযুক্ত ব্যবসা। বাংলাদেশ সরকার তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পে অতিরিক্ত সুবিধা দেয়। সুতরাং, ওয়েব ডিজাইন এবং বিকাশ এজেন্সি শুরু করার জন্য একজন আইটি বিশেষজ্ঞের জন্য চমৎকার সুযোগ।

ডিজিটাল মার্কেটিং সংস্থা

ডিজিটাল মার্কেটিং হ’ল আন্তর্জাতিক মানের অনলাইন ব্যবসা। নতুন ব্যবসা, ই-বাণিজ্য, ভোক্তা সেবা, খুচরা বিক্রেতারা, আইটি, সফটওয়্যার, খাদ্য ইত্যাদি ব্যাবসার সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হলো মার্কেটিং। বর্তমানে অফলাইন মার্কেটিং থেকে অনলাইন মার্কেটিং এ বেশি কাজ হচ্ছে, যা তাদের নিজ নিজ ব্যবসাকে প্রসারিত করতে সাহায্য করছে। তাই আপনার যদি এই লাইন এ জ্ঞান থাকে তবে শুরু করে দিতে পারেন।

ব্লগিং

ধরি আপনি লেখা লিখি করতে পছন্দ করেন। আপনি আপনার এই পছন্দটি একটি লাভজনক ব্যবসায়ে পরিণত করতে পারেন। একটি ব্যক্তিগত ব্লগ তৈরি করে আপনি আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আপনি একটি ডোমেইন কিনে একটি ব্লগ তৈরি করতে পারেন। আপনার ব্লগে নিয়মিত আপনার আকর্ষণীয় আর্টিকেল লিখুন এবং নির্দিষ্ট সময়ে অ্যাডসেন্স এ যোগদান করুন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আপনাকে এই ব্যাপারে যাবতীয় সুযোগ সুবিধা দিবে।

ইউ টিউব থেকে আয়

আপনার যদি একটি ভালো মানের মোবাইল ক্যামেরা থাকে তবে আপনি বিভিন্ন ধরণের বিষয়ের উপর ভিডিও বানিয়ে আপনার চ্যানেল এ আপলোড দিতে পারেন। নিধারিত মানদণ্ড পূরণ করে এডসেন্স এর জন্য এপলাই করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং

ফ্রিল্যান্সিং শিল্প বিশ্বের অন্যতম ক্রমবর্ধমান শিল্প। এটি একটি চুক্তি বেস বা ঘন্টা বেস কাজ। একটি নির্দিষ্ট দক্ষতার উপর আপনি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন। এখানে অনেক উচ্চ বেতনের ফ্রিল্যান্স চাকরি রয়েছে । আপনি ব্লগ, টিউটোরিয়াল ওয়েবসাইট এবং ইউটিউব থেকে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। তবে ব্লগ থেকে ভালোমতো জানতে পারবেন।

ই-কমার্স ব্যবসা

ই-কমার্স সম্পর্কে নতুন কিছু বলার দরকার নেই। এটি বাংলাদেশ এবং বিশ্বের একটি সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন ব্যবসা। এটির জন্য শোরুম বা আউটলেট দরকার নেই। আপনি আপনার নিজস্ব পণ্যটি নিজের ওয়েবসাইটে বা অন্যের ই-কমার্স ওয়েবসাইটে বিক্রি করতে পারেন। ই-কমার্স এ সর্বাধিক জনপ্রিয় পণ্য হলো ইলেকট্রনিক্স, গ্যাজেট, ফ্যাশন, ফিটনেস, সৌন্দর্য পণ্য ইত্যাদি। এ ক্ষেত্রে এখন প্রায় সকল পড়াশুনা জানা মানুষের ধারণা আছে।

তবে অবশ্যই যেকোনো ব্যবসার আইডিয়া এখান থেকে বা অন্য কোনো জায়গা থেকে আপনি সংগ্রহ করেন না কেন, বাজার গবেষণা কিন্তু আপনাকে করতেই হবে। আপনার প্রতিযোগীরা কি করছে, কেন করছে, তাদের মূল্য তালিকা এবং সর্বোপরি আপনার নিজের দুর্বলতা, শক্তি, সুযোগ, হুমকি খুঁজে বের করতে হবে।

নতুন ব্যবসা শুরু করলে অবশ্যই ট্রেড লাইসেন্স করতেই হবে। তাই কিভাবে করবেন তা জানতে আমাদের ওয়েবসাইটের এই লিঙ্কে যান।

বাংলাদেশ সরকারের ব্যবসার জন্য সকল নিয়ম কানুন

ব্যবসায়ের উপর করোনার প্রভাব 

2 Comments

  1. আমি আজ 3 ঘন্টার বেশি অনলাইন সার্ফিং করেছি, তবুও আমি আপনার মত কোন আকর্ষণীয় নিবন্ধ খুঁজে পাইনি। এটা আমার জন্য যথেষ্ট মূল্য সুন্দর. আমার মতে, যদি সমস্ত ওয়েব মালিক এবং ব্লগাররা আপনার মতো চমৎকার সামগ্রী তৈরি করে, তাহলে ইন্টারনেট সম্ভবত আগের চেয়ে অনেক বেশি সহায়ক হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button